স্বরণশক্তি বাড়ানোর পদ্ধতি (বিজ্ঞানের দৃষ্টিকোণ থেকে) >

স্বরণশক্তি বাড়ানোর পদ্ধতি (বিজ্ঞানের দৃষ্টিকোণ থেকে)

আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন যাদের কোন কিছু মনে থাকে না। আবার এমন কিছু ব্যক্তি রয়েছে, যারা কোন কিছু খুব বেশি দিন মনে রাখতে পারেন না। এমন সমস্যা মূলত দূর্বল স্মৃতিশক্তির কারণে হয়ে থাকে। এজন্য স্বরণশক্তি বাড়ানোর পদ্ধতি জেনে নেয়া প্রয়োজন। এই আর্টিকেলে আমরা স্বরণশক্তি বাড়ানোর পদ্ধতি সম্পর্কে বিজ্ঞানসম্মত আলোচনার প্রয়াস চালাব।

স্বরণশক্তি বাড়াতে প্রয়োজন পরিমিত বিশ্রাম

আমরা যখন ঘুমাই তখন আমাদের মস্তিষ্ক অনেকটা ব্যস্ত অফিসের মতো কাজ করে। এটি তখন সারাদিনের সংগৃহীত তথ্যসমূহ প্রক্রিয়াজাত করে। তাছাড়া ঘুম মস্তিষ্ক কোষের পুণর্গঠন ও ক্লান্তি দূর করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অন্যদিকে দুপুরে সামান্য ভাতঘুম আমাদের মন-মেজাজ ও অনুভূতিকে চাঙা রাখে। এটি একটি সুন্নাহও বটে। আর অতিরিক্ত ঘুমের কুফল সম্পর্কে তো আগেই বলা হয়েছে। তাই আমাদের উচিত রাত জেগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দাওয়াহ বিতরণ না করে নিজের মস্তিষ্ককে পর্যাপ্ত বিশ্রাম দেওয়া। একটি গবেষণা করেন একদল গবেষক যেখানে কিছু মানুষকে কিছু ছবি দিয়ে সেগুলো মনে রাখতে বলা হয়। এরপর ৪০ মিনিটের জন্য একটি দলকে ঘুমাতে দেয়া হয় আর অপর দল জেগে থাকে। ৪০ মিনিট পর তাদেরকে ওই ছবিগুলো মনে করতে বলা হয়। দেখা যায় যে যারা ঘুমিয়েছে তারা বেশি ছবি মনে রাখতে পেরেছে। শুধু তাই নয়, কোন কিছু শেখার আগে একটু ঘুমিয়ে নেয়াটাও মনে রাখতে সহায়তা করে। যারা ঠিকমত ঘুমায় না তাদের কোন কিছু মনে রাখার ক্ষমতা একদমই কমে যায়। তাই এবার থেকে ঘুমটা হোক নিয়মিত, নাকি?

দ্রব্যগুণের তেলেসমাত সম্পর্কে জানতে চাইলে ভিজিট করুন

স্বরণশক্তি বাড়াতে দরকার পর্যাপ্ত ঘুম

রাতে ৬ ঘণ্টার কম ঘুম হলে তা বার্ধক্য প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে মস্তিষ্কে বাঁধার সৃষ্টি করে, জানান রচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ড. মাইকেন নেডেরগার্ড৷ তিনি জানান, এর জন্য জরুরি হচ্ছে গভীর ঘুম৷ এটা না হলে মস্তিষ্ক প্রায় সাত বছর বেশি বুড়িয়ে যেতে পারে৷

স্বরণশক্তি বাড়াতে প্রয়োজনীয় খাদ্য খান

স্বরণশক্তি বাড়াতে জয়তুনের তেল

সম্প্রতি ফ্রান্সের এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যয়তুনের তেল চাক্ষুস স্মৃতি (visual memory) ও বাচনিক সাবলীলতা (verbal fluency) বৃদ্ধি করে। আর যেসব খাদ্যে অধিক পরিমাণে Omega-3 ফ্যাট রয়েছে সেসব খাদ্য স্মৃতিশক্তি ও মস্তিষ্কের কার্যকলাপের জন্য খুবই উপকারী।

স্বরণশক্তি বাড়াতে কাঠবাদাম

কাঠবাদাম একটি চমৎকার আয়ুর্বেদিক উপাদান। এটি স্মৃতিশক্তি ও মস্তিস্কের শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টঅক্সিডেন্ট ও ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড। এর মধ্যে থাকা অ্যান্টঅক্সিডেন্ট চোখের জন্যও ভাল।

যা করতে হবে

– ৫ থেকে ২০টি কাঠবাদাম সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন।

– পরের দিন সকালে খোসা ছাড়িয়ে নিন এবং একে গুড়া করুন।

– এক গ্লাস দুধের মধ্যে এই গুঁড়া মিশিয়ে ফুটান।

– স্বাদ বাড়ানোর জন্য সামান্য চিনি বা মধূ মেশাতে পারেন।

– ৩০ থেকে ৪০ দিন এটি প্রতিদিন নিয়মিত পান করুন।

স্বরণশক্তি বাড়াতে মধু ও দারুচিনি

মধু ও দারুচিনি স্নায়ুকে শিতিল এবং স্মৃতিশক্তি বাড়ায়। গবেষণায় বেড়িয়ে এসেছে- কেবল দারুচিনি একটু নাকের কাছে নিয়ে শুঁকলেও স্মৃতিশক্তি ভাল হয়, এতে মস্তিস্কের কার্যক্রম বাড়ে। অনেকে এটাও বলেছেন যে, ঘুমের আগে মধু খেলে মানসিক চাপ কমে; ঘুমেরও উপকার হয়। এটি স্মৃতিশক্তি একত্রীকরণে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

যা করতে হবে

  • এক চা চামচ মধুর মধ্যে এক চিমটি দারুচিনি মেশান।
  • কয়েক মাস যাবত প্রতি রাতে এটা খান।

এছাড়া আখরোটের ‘পলিফেনল’ ব্রেনের স্মৃতি শক্তি বাড়িয়ে দেয়৷ তাছাড়াও সামুদ্রিক মাছের ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, পালং শাক, ডার্ক চকলেট, গ্রিন টি, অলিভ অয়েল, শাক-সবজি ইত্যাদি মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য রক্ষায় খুবই জরুরি৷

মস্তিষ্কের কোষ ফ্যাট অর্থাৎ স্নেহ পদার্থ দিয়ে তৈরি। তাই খাবার থেকে তেল-চর্বি একেবারে বিদায় না করাই ভাল। বাদাম, তেলের বীজ, মাছ ইত্যাদি মস্তিষ্কের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল। আর খাবার সময় একা একা না খাওয়াই ভাল। সবার সাথে বসে খাবার খেলে তা মস্তিষ্কের জন্য সুফল বয়ে আনে।

মস্তিষ্কের জন্য ঠান্ডা ঘরই ভালো

গরমের চেয়ে ঠান্ডায় স্মৃতিশক্তি এবং মনোযোগ তিনগুণ বেশি থাকে৷ এ কথা জানান নিউ সাউথ ওয়েল্স বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্ট্রেলিয়ান মনোবিজ্ঞানী প্রফেসার ইয়োসেফ ফোরগাস৷ এছাড়া ঠান্ডা ঘর মাথাকেও ঠান্ডা রাখে, তাই ঘরের তাপমাত্রা কখনো ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি রাখা ঠিক নয়, জানান তিনি৷

Related Post

স্বরণশক্তি বাড়াতে প্রয়োজন নিয়মিত ব্যায়াম

নিয়মিত হাঁটাচলা বা জগিং শরীরকে ভালো রাখে– এ কথা কম-বেশি আমরা সকলেই জানি৷ সেন্ট লুইস বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞানী মার্ক ম্যাকডানিয়েল জানান, শুধু শরীর নয় হাঁটাচলা এবং জগিং ব্রেনকেও ফিট রাখে৷ তবে সবচেয়ে ভালো হয় সপ্তাহে দুই থেকে তিনদিন অন্তত ২০ মিনিট করে হাঁটলে বা জগিং করলে৷ কোন শব্দ বা বাক্য যদি আপনি হেঁটে হেঁটে মুখস্থ করার চেষ্টা করেন, তাহলে সেটা বহুদিন ধরে আপনার মনে থাকবে। বহু গবেষণায় এটা প্রমাণিত। অভিনেতারাও এই কাজটা করে থাকেন।

বন্ধুদের সাথে সম্পর্ক বহাল রাখুন

মানুষের সাথে কথাবার্তা বলা বা টেলিফোনে যোগাযোগ মস্তিষ্ককে তরুণ রাখে৷ এই তথ্যটি জানিয়েছেন এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরোলজিস্ট ড. স্টুয়ার্ট রিচি৷ তিনি বলেন, দিনে মাত্র ১০ মিনিটের যোগাযোগই নাকি মানুষের স্মৃতিশক্তিকে বেশ জোড়ালোভাবে জাগিয়ে তুলতে সহায়তা করে৷

প্রতিদিনের নিয়ম থেকে বেরিয়ে আসুন

ব্রেনকে সব সময় নতুন কিছু শিখতে হয়৷ তা না হলে মস্তিষ্ক নির্জীব হয়ে যায়৷ তাই প্রতিদিনের রুটিন ভেঙে অন্যকিছু করুন৷ মাঝে মাঝে অন্য রাস্তা দিয়ে কর্মস্থলে বা কলেজে যান৷ নতুন কোনো ভাষা বা যন্ত্র বাজানো শিখুন৷ এতে ডিমেনশিয়ার ঝুঁকি শতকরা ৭৫ ভাগ কমে যায়৷ নিউ ইয়র্কের আলবার্ট আইনস্টাইন মেডিকেল কলেজের করা এক সমীক্ষা থেকে জানা গেছে এ তথ্যটি৷

স্মৃতিকে শক্তিশালী করতে চিউয়িং গাম খাওয়া

ছোটবেলা থেকে শুনে আসছি চিউয়িং গাম খেলে দাঁতে পোকা হয়। চিউয়িং গাম খেতে গিয়ে দেখে আসছি বেশি খেলে চাপায় ব্যাথা হয়। কিন্তু স্মৃতিশক্তি বাড়ে এটা তো কখনো শুনিনি! কিন্তু একদল গবেষক গবেষণা করে বের করেছেন যে কোন কিছু শেখার সময় চিউয়িং গাম খেলে সেটি বেশি মনে থাকে। গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের একটি কাজ দেয়া হয়েছিল যেখানে তাদের কোন কিছু দেখতে দিয়ে পরে সেটি আবার মনে করতে দেয়া হয়েছিল। দেখা গেছে যে যারা ওই জিনিসগুলো দেখার সময় চিউয়িং গাম খেয়েছিল তারা বেশি মনে রাখতে পেরেছে।

আরেকটি স্বরণশক্তি বাড়ানোর পদ্ধতি হল কফি খাওয়া

কোন কিছু মনে রাখার জন্য আগে কফি খেলে কোন উপকার হয় কিনা তা এখনো বিজ্ঞানীরা প্রমাণ করতে পারেনি। যেমন, তুমি যদি কফি খেয়ে পড়তে বসো তাহলে কফি খাওয়ার ফলে যে তোমার পড়া বেশি মনে থাকবে এ নিয়ে কোন শক্তিশালী যুক্তি নেই।

তবে কফি স্মৃতি সংরক্ষণে সহায়তা করে, অন্তত কিছু সময়ের জন্য হলেও। বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে দেখেছেন যে কোন কিছু শেখার পর কফি খেলে তা মোটামুটি ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত মনে থাকার সম্ভাবনা থাকে।

এক পরীক্ষার মাধ্যমে এটি প্রমাণিত হয়েছে যেখানে অংশগ্রহণকারীদের কিছু ছবি দেখিয়ে পরবর্তীতে অনেক ছবির মাঝে তাদেরকে দেখানো ছবি খুঁজে বের করতে বলা হয়েছিল। এই পরীক্ষার ফলাফল থেকেই বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে, কোন কিছু মনে রাখতে হলে তার আগে কফি খাওয়ার চেয়ে পরে খাওয়া বেশি উপকারী।

মেডিটেশন করুন স্মৃতি বাড়াতে

আমাদের মস্তিষ্কের ছোট একটি অংশ সবসময় তৈরি থাকে মনে রাখার মত কিছু হলেই সেটিকে ধরে ফেলতে। একে বলা হয় Working memory। এর কাজ হচ্ছে মনে রাখার মত কোন ঘটনা পেলেই খপ করে ধরে ফেলা আর কিছু সময়ের জন্য জমিয়ে রাখা।

এর মধ্যে যদি তুমি, মানে তোমার মস্তিষ্ক, বুঝতে পারে যে এই ঘটনার প্রয়োজন আছে তাহলে তাকে পাঠিয়ে দেয়া হয় স্মৃতি তৈরি করে দীর্ঘমেয়াদে জমিয়ে রাখার জন্য। আর অপ্রয়োজনীয় ঘটনাকে ফেলে দেয়া হয় এখান থেকেই।

মেডিটেশন এই Working memory কে দ্রুত কাজ করতে এবং এর সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে সহায়তা করে। বিভিন্ন গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, মেডিটেশন মানুষের মনে রাখার ক্ষমতাকে বৃদ্ধি করে।

আর পাশাপাশি এটি মানুষের মনোযোগ বৃদ্ধি করে। আর তাই যদি তোমার মনে হয় যে তুমি কোন কিছু মনে রাখতে অর্থাৎ স্মৃতি হিসেবে জমিয়ে রাখতে পারছো না, মেডিটেশন করে সেই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করো।

স্বরণশক্তি বাড়ানোর পদ্ধতি নিয়ে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস Point আকারে নিচে দেয়া হল-

১. রাত ১০টার আগেই ঘুমিয়ে যান আর ভোর সকালে জেগে উঠুন।

২. সকালে কমপক্ষে ১৫ মিনিট হাটুন বা জগিং করুন।

৩. দৈনিক গোসল করুন এবং সেই সাথে সামান্য সাঁতার কাটুন।

৪. পড়ার সময় গভীর মনোযোগ দিন। শেখা হয়ে গেলে বার বার রিভিশন দিন।

অনলাইনে একদম ফ্রিতে ইনকাম করার সহজ পদ্ধতি জানতে ভিজিট করুন

Md Nazrul Islam: পেশায় আমি একজন প্রভাষক (ইংরেজি বিভাগ) ও লেখক। অবসর সময়ে অনলাইনে নিজে আয় করার পাশাপাশি নতুনদের সহযোগিতা করি। বিভিন্ন ওয়েবসাইটে কনটেন্ট রাইটিং করতে ভালবাসি। https://www.tkincome.com ও https://www.sylhet786.com নামে আমার নিজস্ব দু’টি বাংলা ওয়েবসাইট রয়েছে।
Leave a Comment
Recent Posts